টেক্সটাইল প্রিন্টিং ???

প্রিন্টিং শব্দটি একটি ল্যাটিন শব্দ থেকে উৎপত্তি লাভ করেছে। যার অর্থ হলো “Pressing” বা চাপ দেওয়া।কোন একটি নির্দিষ্ট ডিজাইনকে বিভিন্ন রঙের প্যাটার্ন অনুযায়ী একটি ফেব্রিকের উপর ফুটিয়ে তোলাকে প্রিন্টিং বলে।বর্তমানে পোশাক শিল্পে প্রিন্টিং এর গুরুত্ব অনেক বেশি।কোন ফেব্রিকের উপর বিভিন্ন ধরনের ডিজাইন প্রিন্ট করা হয় যা মানুষের রুচির বহিঃপ্রকাশ ঘটায়।বর্তমানে অনেক উন্নত পদ্ধতিতে প্রিন্ট করা হয় কিন্তু প্রিন্টিং এর শুরুটা এতো উন্নত ছিল না।সর্বপ্রথম চীনারা কাঠের ব্লক খোদায় করে কাপড় ছাপার কাজ শুরু করেছিল।প্রিন্টিং এর জন্য তখন শুধু লাল ও নীল রং ব্যবহার করা হতো।কিন্তু বর্তমানে প্রিন্টিং এর কাজে প্রায় ১২-১৫ টি রং ব্যবহার করা হয়।সতেরো শতকের শেষের দিকে রোলার প্রিন্টিং এর যাত্রা শুরু হয়।এই পদ্ধতিতে কোন ফেব্রিকের উপর একই সাথে বিভিন্ন রঙের ডিজাইন প্রিন্ট করা যায়।রোলার প্রিন্টিং এর কয়েক বছর পর আঠারো শতকের শেষের দিকে স্ক্রিন প্রিন্টিং পদ্ধতি চালু হয়।সর্বশেষ আবিষ্কৃত প্রিন্টিং মেশিন হচ্ছে Digital Printing Machine (ডিজিটাল প্রিন্টিং মেশিন)।

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Cart
Your cart is currently empty.